অপেক্ষা।

এই অরাজকতার আক্রোশে, ভরে দেওয়া হয় জেলের কুঠুরী।

ক্ষিদের জ্বালায় শিশুর কান্না,

আমার শক্ত হাত কে কাঁদতে বাধ্য করে।

ইচ্ছে করে-

এই হাত কে ভেঙ্গে ফেলি যেমন

শ্রমিকের হাতুড়ি ভাঙ্গে পাথর।

ইচ্ছে করে-

হাতের এই কলম কে ভেঙ্গে দিই,

দিই গুঁড়িয়ে।

কবে আসবে স্বপ্নের সেই গোর্কী

লম্বা কোট, হাতে ফুল নিয়ে-

সীমান্তে দাঁড়িয়ে করি অপেক্ষা

সূর্যাস্তের গোলাপি আভায়-

তার অপেক্ষায়।

কবে আসবে সে, চোখ বুজে যায়।

ওই তো, ওই ক্ষিতিজের ওপারে, ধূলোর রেখা দেখা যায়।।

Advertisements